আনোয়ারায় ঘরের ভিতরে গায়েবি মাজার !

নিজস্ব প্রতিনিধি –

আনোয়ারায় ঘরের ভেতরে হঠাৎ গায়েবি মাজারের সন্ধান মিলেছে! বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে আশেপাশের এলাকা থেকে কথিত মাজারের মহিলা খাদেমের কাছ থেকে করোনা ও বিভিন্ন রোগ নিরাময়ের জন্য পানি পড়া নিতে আসে।

(১৮) জুন বৃহস্পতিবার বিকেলে খবর পেয়ে কথিত গায়েবি মাজার গুড়িয়ে দেন আনোয়ারা থানা পুলিশ।ঘটনাটি ঘটেছে আনোয়ারা উপজেলার দক্ষিণ চাপাতলীর গুদ্বীপ ছাদেক আলী তালুকদারের বাড়িতে।

জানা যায়,গুন্দ্বীপ গ্রামের ছাদেক আলী তালুকদারের বাড়ীর মোঃ আলীর স্ত্রী সাগেরা খাতুন(৪৫) গত এক সপ্তাহ আগে তার বসতঘরে গায়েবি মাজার নির্মাণ করেন।

ঐ মহিলা নিজেই সেই মাজারের সকল কাজ দেখাশুনা করে যাচ্ছিলেন।মাজারের প্রচারণায় একদল লোককে এলাকায় নামিয়ে দেন।চারদিকে ছড়িয়ে দেন সেই গাযেবি মাজারে করোনা ও বিভিন্ন রোগের জন্য পানি পড়া দেওয়া হচ্ছে।

মহিলা সাগেরা খাতুন জানান,প্রায় কয়েকমাস আগে খাজা গরিবে নেওয়াজ আমাকে স্বপ্নের মাধ্যমে আমার ঘরের ভেতরে মা ফাতেমা,গরিবে নেওয়াজ ও গরম বিবির নামে ৩টি কবর করতে বলেন।তাদের নামে কবর করে চারদিকে গিলাফ দিয়ে মাজার তৈরী করি।আমার ঘরে হাজিরার দেখার আসন বসিয়ে মাজারের কাজগুলো পরিচালনা করে যাচ্ছি।

দেখা যায় বাড়ীর পিছনে গরুর গোয়াল ঘরের মধ্যে মাটি সমান করে গাছের কাট দিয়ে ৩টি কবর করে গিলাফ দিয়ে মাজার সাজিয়েছে।তার ঘরে সেই পীরদের হাজির করতে হাজিরা আসন করেন।

এ বিষয়ে আনোয়ারা থানার অফিসার (ওসি) দুলাল মাহমুদ জানান এক মহিলা তিনটি গায়েবী কবর করে মাজার নির্মাণ করে এলাকাতে করোনা নিরাময়ের পানি সহ বিভিন্ন ধরণের রোগ নিরাময়ের পানিপড়া দিচ্ছেন বলে এলাকায় গুজব ছড়িয়ে পড়ে।খবর পেয়ে ঐ এলাকায় আনোয়ারা থানার পুলিশের একটি টিম গিয়ে ঐ মাজারটি গুড়িয়ে দেয় এবং তাদের কঠোরতা প্রদান করা হয় যাতে এই ধরনের। ভন্ডামীগুলো ভবিষ্যতে আর না করে।

Related posts