কর্ণফুলীতে বিরল প্রজাতির ২টি “তক্ষক”সহ দুই পাচারকারী আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি
সারা আনোয়ারা

বান্দরবন পাহাড়ি এলাকা থেকে ঢাকায় পাচারকালে কর্ণফুলীতে বিরল প্রজাতির ২টি “তক্ষক”সহ দুই পাচারকারীকে আটক করেছে সিএমপি কর্ণফুলী থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার ভোররাতে কর্ণফুলী থানা পুলিশ চেকপোস্টে অভিযান চালিয়ে এসব বিরল তক্ষক জব্দ করেছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সহকারি পুলিশ কমিশনার (কর্ণফুলি জোন) মো. ইয়াসির আরাফাত। ধারণা করা হচ্ছে, এসব তক্ষকের মূল্য কোটি টাকার উপরে। তবে পটিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেছেন ভিন্নকথা।

আটক দু’ব্যক্তিরা হলেন-ঢাকা কেরানিগঞ্জ থানার বটতলী গ্রামের মৃত সিরাজুল হকের ছেলে হাজী মো. মনিরুল হক (৬০) ও একই জেলার সাভার থানার বাকুরতা খাইসাছরের আক্কাস আলী মাষ্টারের দেলোয়ার হোসেন (৫০)।

আটক ব্যক্তিদের কাছ থেকে বিশেষ প্রক্রিয়ায় লোহার খাঁচায় রক্ষিত অবস্থায় দুটি বিরল প্রজাতির তক্ষক উদ্ধার করা হয়। যার ওজন অনুমান ১৫০ গ্রামের বেশি এবং লম্বা আনুমানিক ১৪ ইঞ্চি বলে জানা যায়।

প্রেস ব্রিফিংয়ে এসি মো. ইয়াসির আরাফাত জানান, তক্ষক দুটি অপরাপর সহযোগীদের সহায়তায় বান্দরবন পাহাড়ি এলাকা থেকে ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছেন দুই পাচারকারী। এটি পাচার করার জন্য ক্রেতাদের সাথে তারা যোগাযোগ করেছিল। আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের কার্যক্রম প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

এ বিষয়ে কর্ণফুলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শাহিনা সুলতানা জানান, তক্ষক নিয়ে আটক ব্যক্তিদের বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইনে জরিমানা করা হয়েছে। তক্ষক দুটি পটিয়া শ্রীমাই রিজার্ভ ফরেস্টে অবমুক্ত করা হবে। ইতোমধ্যে রেঞ্জ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান তক্ষক দুটি গ্রহণ করেছেন।

Related posts