আনোয়ারা – বাঁশখালী সড়কে নিত্যদিন তীব্র যানজট, যাত্রীদের ভোগান্তি চরমে !

শওকত আলী পারভেজ ঃ আনোয়ারা’র প্রাণকেন্দ্র চাতরী থেকে দুইধারের সবুজ গাছের সারির সৌন্দর্য উপভোগ করতে করতে ৭ কি.মি পথ পাড়ি দিয়ে শিকলবাহা ক্রসিং পার হয়ে নিমিশেই পৌঁছে যেত যে যার গন্তব্য স্থানে।

গত কয়েক মাস আগের চিরচেনা সেই সবুজের রুপ পাল্টে যেন মরুভূমিতে পরিণত হলো।সবুজের সাথে সাথে হারিয়ে যাচ্ছে নিত্য চলাচলকারী মানুষদের সময়।

পিএবি সড়কটি ছয় লাইন করার লক্ষে কেটে পেলা হচ্ছে রাস্তার পাশের সব গাছ।রাস্তার দুইপাশের মাটি খুড়েঁ ভরাট করা হচ্ছে বালি দিয়ে।গাছ কাটা আর বালি ভরাট নিয়ে প্রতিদিন লেগে থাকে দীর্ঘ যানজট।দুই-তিন কি.মি ধরে ঘন্টার পর ঘন্টা লেগে থাকে এই যানজট।যানজটে পড়ে অফিস কিংবা বিভিন্ন কাজকর্মে যাওয়া থেকে শুরু করে ঘরে ফেরা মানুষ ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেন সবাই।

এই নিয়ে ঠিকাদার কোম্পানির কর্মকর্তাদের সাথে কথা বললে তারা জানান,আমাদের কিছু করার নাই,আমরা দ্রুত কাজ শেষ করার চেষ্টা করতেছি।যানজট মুক্ত রাস্তা উপভোগ করতে হলে একটু ভোগান্তি সহ্য করতে হবে।

নিয়মিত চলাচল কারী একজন যাত্রী বলেন,এখন প্রতিদিন এক ঘন্টা আগে বাসা থেকে বের হয়েও সঠিক সময়ে অফিসে পৌঁছাতে পারি না।আবার সন্ধ্যায় ফিরতে ও দেরি হয়।তবে আমরা আশা করছি খুব শীঘ্রই নতুন রাস্তা দেখতে পারব।

রাস্তার কাজ ছাড়াও বর্ষার মৌসুমে রাস্তার দুই পাশে নরম কাঁদার কারণে বড় গাড়ি উল্টে গিয়ে যানজট দীর্ঘ হয়ে মরার উপর খরার ঘা এর মতো পরিণত হয়।

Related posts