কর্ণফুলীতে ‘অনলাইন জুয়া’ খেলা নিয়ে সংঘর্ষ, নারীসহ আহত ৫

নিজস্ব প্রতিনিধি
সারা আনোয়ারা।

কর্ণফুলীতে অনলাইন জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে নারী পুরুষসহ কমপক্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন।

গত রোববার রাতে উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের মাইজ্যা ফকির গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রোববার সন্ধ্যায় জুয়া খেলা বন্ধ করা নিয়ে রুবেল ও হারুন গ্রুপের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে সালিশি বৈঠকে বসে রাতে তা সমাধানের কথা থাকলেও সমাধা হয়নি। এক পর্যায়ে আবারো দুজনের সংঘর্ষ ঘটলে এতে দুপক্ষের বাহাদুর (৩৫) পিতা মৃত আব্দু শুক্কুর, আবুদল হামিদ (৫০) পিতা মৃত কোরবান আলী, মো. হারুন (৩৫) পিতা মৃত আবদুস ছোবহান, পেয়ার আহমদ (৩৪) পিতা মৃত কালা মিয়া, ফাতেমা বেগম পাতলি (৩৬) স্বামী জামাল আহমেদ গুরুতর আহত হয়।

আহতদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকি তিনজন প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পুলিশের হেফাজতে ছিলো বলে স্থানীয়রা জানান। তাঁরা জানান চরলক্ষ্যার বিভিন্ন ওয়ার্ডে রমজান মাস জুড়ে জুয়ার আসর বসায়। জুয়ার আসর
বন্ধের জেরে দুপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে তুমুল মারামারি ও পাল্টা হামলা হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আহতদের উদ্ধার করে হাসপতালে নিয়ে যায়।

জুয়া মানেই ক্যাসিনো। ক্যাসিনো মানেই টাকা উড়ানোর জায়গা। অনেকে জানান, উপজেলার ইছানগরের এক বাসায়ও চলে এমন ক্যাসিনো জুয়া। যেখানে জুয়ার নেশায় মেতে থাকেন উঠতি বয়সি জুয়াড়িরা। চলে জুয়া খেলার নামে রমরমা ব্যবসা।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দায়িত্বরত এএসআই আলা উদ্দিন মিয়া জানান, কর্ণফুলী থেকে মারামারির ঘটনায় দুজনকে মেডিকেলে আনা হয়েছে। মেডিকেলের সার্জারী বিভাগে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ বলেন, ‘এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় সব আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Related posts