কর্ণফুলীতে ৬দিনের মাথায় ছুরিকাঘাতে আবারো খুন; আটক ১

মোহাম্মদ মহিউদ্দিন – কর্ণফুলী চট্টগ্রাম প্রতিনিধি , চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলায় দু’দিন আগে চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৈঠকের শলাপরামর্শকালে মারামারির ঘটনায় ছুরিকাঘাতে দুভাষ (২২) নামে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত একজনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৫ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের বানুর বাপের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। পরে আহত অবস্থায় দুভাষকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত যুবক হলো-চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের বানুর বাপের বাড়ি এলাকার অাহমদ হোসেনের ছেলে মো. অারিফ হোসেন দুভাষ (২২)।

প্রত্যক্ষদর্শী মো.সেলিম ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ থেকে ২/৩দিন আগে চরলক্ষ্যার বানুর বাপের বাড়ির মো. সেলিম ওয়াহিদের বাড়িতে চুরি সংঘটিত হয়। এবং পরে চোর সনাক্ত হওয়ান পর বাড়ি থেকে চুরি হওয়া অধিকাংশ মালামাল যেমন-মোটর, সিলিং ফ্যান, টেবিল ফ্যান উদ্ধার হলেও কানের দুল উদ্ধার হয়নি। এনিয়ে চুরির ঘটনাটি স্থানীয় ভাবে সমাধানের জন্য চোর ও অন্যান্য লোকজন বসে শলাপরামর্শকালে কথা কাটাকাটি হলে এক পর্যায়ে একই বাড়ির শেখ আহমদের পুত্র মো. কায়সারের নেতৃত্বে দিদার, তাসকিন শাকিব, এনাম রাজু, পারভেজসহ আরো কয়েকজন আরিফ হোসেন দুভাষকে হামলা চালিয়ে ছুরিকাঘাত করে। পরক্ষণেই স্থানীয় লোকজন পারভেজ কে অাটকে রাখে ও বাকিরা পালিয়ে যায়। পরে র‌্যাব পুলিশের একটি যৌথ টিম এসে নিয়ে পারভেজ কে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা অারো জানান,পুরো কর্ণফুলীতে কয়েকটি কিশোর গ্যাং ও গ্যাং কালচার বৃদ্ধি পেয়েছে। এদের আইনের আওতায় আনা হলে কিশোর অপরাধ অনেকটা কমে যাবে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মোহাম্মদ আলাউদ্দিন তালুকদার বলেন, সকালে ছুরিকাঘাতে আহত এক যুবককে হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার সত্যতা স্কীকার করে কর্ণফুলী থানার অফিসার ইনচার্জ মো ইসমাইল হোসেন বলেন সালিশী বৈঠকে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ছুরি দিয়ে আঘাত করে।ঘটনাস্থল থেকে স্হানীয়রা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আরিফ।তিনি আরও বলেন এঘটনায় পারভেজ(২২)নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

প্রসঙ্গত, আজ থেকে ৬দিন আগে গত ১৯ শে এপ্রিল চরলক্ষ্যায় কবিরাজ শায়ের খুন হন এবং র‌্যাবের হাতের ৬জন গ্রেপ্তার হন।

Related posts