ক্রিকেট নিয়ে জুয়া : নৈতিকতার অধঃপতন!

মো তাজুল ইসলাম
অতিথি রিপোর্টার
(খলিফা পাড়া,বৈরাগ)

সহকারী রিপোর্টার
আরিফ উদ্দিন

সারা আনোয়ারা
২৪-০৩-২০১৯

মানুষের কর্মব্যস্ততার মাঝে বিনোদন হিসেবে ক্রীড়াকে প্রাধন্য দেওয়া হয়।ক্রীড়ায় থাকবে হার জিত,থাকবে প্রতিযোগীতা।

কিন্তু এই ক্রীড়াকে কেন্দ্র করে যখন মেতে উঠে জুয়ার আসর, তখন বিনোদন হয়ে যায় বিষ পান।
রুচিসম্মত দিক দিয়ে ক্রিকেট সকল স্তরের মানুষের কাছে প্রথম পছন্দের। সম্প্রতি এই রুচিসম্মত খেলাটাকে ঘিরে জুয়ার আসরকে প্রশ্নবিদ্ধ নিয়ে গেছে এক শ্রেনীর মানুষ বাংলাদেশ সহ বেশ কয়েকটি দেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলার স্থান নিয়েছে ক্রিকেট।কিন্তু দুর্ভাগ্যবশতঃ বিশ্ব ক্রিকেটকে নিয়ন্ত্রন করা কিছু অসাধু ব্যবসায়ী প্ররেচনায় ৫০ ওভারের বিনোদনমূলক ওয়ানডে কে টি২০ নামক মার কাটারী জুয়ায় পরিনত করেছে।

এক সময়ে ভারত, পাকিস্তান,সাউথ আফ্রিকা,অষ্ট্রেলিয়া,ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতে বড় বড় দলের দেখার জন্য স্কুল কলেজ,অফিস,আদালত সমূহ নির্দিষ্ট সময়ে কিছু আগে ছুটি হয়ে যেত।আমরা পাড়ার ছোট-বড়,ছেলে বুড়ো সবাই একসাথে কত মজা করে একটি টিভি সেটের সামনে বসেই খেলা দেখতাম।
খেলোয়াড়রা প্রাণপনে নিজ দেশের জয়ের জন্য সবর্স্ব দিয়ে খেলতেন।তখনকার ওয়াসিম আকরাম, ইনজিমাম-উল জক,ব্রায়ন লারা,শচীন টেন্ডুলকার,জন্টি রোডস, মেথুউ হেইডেন,জয়সুরিয়াদের মতো গ্রেটদের মাঠ কাপাঁনো পারফরমেন্সে আমরা মুগ্ধ হতাম।

তখন ছিলো না এত টাকার ছড়াছড়ি বা IPL,BPL কিংবা PSL এর মতো হাজার হাজার কোটি টাকার আসর।খেলোয়াড়দের চার ছক্কা ফুলঝুড়িতে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গিতে নাচতে হতোনা চিয়ারলিডার নামক অর্ধনগ্ন মেয়েদের।

শহর থেকে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল,সর্বত্রই ডিশ এন্টেনা কিংবা মুঠোফোনে ইন্টারনেটের কল্যানে ত্রিকেট জুয়ার আসক্ত হচ্ছে রিক্সাচালক,দিনমজুর থেকে শুরু করে স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্র। শূণ্য থেকে কোটিপতি বা কোটিপতি থেকে শূন্য হবার খবর তো সর্বত্রই বিরাজমান।ছোট বড় কিংবা পরিবারের সবাই মিলে একসাথে বসে খেলা দেখার পরিস্থিতি ধ্বংশ হয়েছে অনেক আগেই।মূলত ভারতের IPL ও T20 এর মাধ্যমে সারা পৃথিবীতে এই ক্রিকেট জুয়া ছড়িয়ে পড়ে,এর থেকে মুক্তি মিলছেনা শহর-গ্রাম, অফিস,আদালত ও কোমলমতি শিশু কিশোরদের।
তাছাড়া ক্রিকেট প্রেমিক অনেকেই মতামত দিয়ে বলছেন, IPL ও T20 -কে কেন্দ্র করে নানা দুর্ঘটনার খবর পত্রপত্রিকায় দেখা যায়।

গত দুয়েক বছর আগে পাটিয়ার এক ব্যাক্তি ৩০ লক্ষ টাকা এবং ভিটা বাড়ি হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যাওয়া এবং নগরীর অক্সিজেনে IPL ও ক্রিকেট জুয়াকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রী ঝগড়া । এক পর্যায়ে স্ত্রী নিহত হওয়া সহ এমন অসংখ্য হতাহতের ঘটনা অামরা পত্রিকায় দেখতে পাই।

চলমান গতিতে এই ক্রিকেট জুয়া চলতে থাকলে সাম্প্রতিককালের মরণ নেশা ইয়াবাকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে আসতে বেশী সময় লাগবে না।

বিনোদন হিসেবে ক্রিকেট যেন জুয়ার আসর না হয় সে ক্ষেত্রে পরিবার থেকে শুরু করে স্থানীয় মসজিদের খতিব সাহবেগন,স্কুল কলেজের শিক্ষক ও এলাকার সচেতন মানুষ এবং প্রশাসন নিজ নিজ জায়গা থেকে এর কুফল সম্পর্কে তৎপর হয়ে গণচেতনামুলক প্রচারনার মাধ্যমে দেশের জনগণের মুক্তি নিশ্চিত করে একটি সুন্দর সমাজ গঠনে তৎপর হবেন বলে আশা রাখছি।

Related posts

Leave a Comment