টনসিলের প্রদাহ ও করণীয়

মোঃ ওয়াহিদুল

সারা আনোয়ারা
০৮-১০- ‘১৯ ইং মঙ্গলবার

টনসিলের সমস্যায় প্রথমে ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। তবে খুব বেশি সমস্যা করলে অস্ত্রোপচার করার প্রয়োজন পড়ে। টনসিল ফোলা বা টনসিলের প্রদাহ কমবেশি সবাইকে ভোগায়। কিন্তু সব গলাব্যথাই যে টনসিল, তা নয়। ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রে গলাব্যথার কারণ অ্যালার্জি বা ভাইরাসজনিত। ঋতু পরিবর্তনের সময় ঠাণ্ডা পানি পান করলে টনসিল বাড়তে পারে। টনসিল বারবার ফুলে গেলে তখন অস্ত্রোপচার করে তা ফেলে দেওয়াই ভালো। আমাদের দেশে ঘন ঘন আবহাওয়ার পরিবর্তন, আর্দ্রতা ও উষষ্ণতার কারণে ভাইরাস ও অ্যালার্জির প্রকোপ বেশি। এটিই বেশির ভাগ ক্ষেত্রে গলাব্যথার কারণ। এ ছাড়া পুষ্টির অভাব, ঠাণ্ডা পানি বা আইসক্রিম, স্যাঁতসেঁতে পরিবেশ

টনসিলের ঝুঁঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে। শিশু ও কিশোর-কিশোরীদের সমস্যা হয় বেশি। তবে যে কোনো বয়সেই এ সমস্যা হতে পারে। প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ধূমপান, ধুলাবালি, জ্বালানির ধোঁয়া, দীর্ঘদিনের সাইনাসের সমস্যা, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়াসহ নানা কারণে গলাব্যথা হতে পারে। গলাব্যথার সঙ্গে জ্বর থাকলে টনসিলের প্রদাহ হওয়ার আশঙ্কা বেশি। তাই জ্বর না থাকলে এ নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এসব গলাব্যথা এক সপ্তাহ পর এমনিতেই সেরে যায়। বয়স ও রোগের মাত্রা অনুযায়ী চিকিৎসকের নির্দেশনামতো ওষুধ খেতে হবে। শিশু বারবার টনসিলের প্রদাহ বা গলনালির প্রদাহে আক্রান্ত হলে তার দিকে একটু বাড়তি নজর দিন, ভালো থাকুন।

Related posts