ডাবের পানির উপকারিতা

আরিয়ান মিনহাজ

ডাবের পানি অত্যন্ত উপকারী একটি প্রাকৃতিক পানীয়। সরাসরি ডাব থেকে পাওয়া যায় বলে এতে কোনো প্রকার কৃত্রিমতার ছোঁয়া নেই। নেই কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও। বেশ কিছু কারণেই ডাবের পানি শরীরে জন্য উপকারী।
দুপুরের কড়া রোদ্দুরে একটুখানি ঠান্ডার পরশ পেতে কত যে পানিয়র কথা চিন্তা করি আমরা। কিন্তু সব পানিয় কি স্বাস্থ্যকর? রাস্তায় তৈরি বিভিন্ন ফলের জুস, কোমল পানিয় স্বাস্থ্যের জন্য কতটা ভালো তা অজনাই থেকে যায়। তবে এসব থেকে মুক্তি দেবে নারকেলের পানি।
গরমে একটু প্রশান্তি পেতে নারকেলের পানির তুলনা নেই। আর এ পানি স্বাস্থ্যসম্মত কিনা এ প্রশ্ন আসার কোনো সুযোগই নেই।

ডাবের পানির উপকারিতাঃ

১. ডাবের পানি গ্যাসের প্রাকৃতিক ওষুধ হিসেবে কাজ করে। নিয়মিত ডাবের পানি করলে গ্যাসজনিত পেটের বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

২. ডাবের পানি রক্তের ঘনত্ব বৃদ্ধি করে। এমনকি ডাবের পানি সরাসরি রক্তের মধ্যে দেয়া যায়।
৩. ফলের রসের থেকেও ডাবের পানির গুণাগুণ অনেক বেশি। ফলের রসের থেকে এতে অধিক পরিমাণ মিনারেল থাকে। এছাড়াও ডাবের পানির অন্য একটি গুণ হল এতে ক্যালরি যেমন কম
তেমনি সুগারের পরিমাণও কম। ফলে ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য এটা বিশেষ উপকারি।

৪. ডাবের পানিতে পটশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম থাকে যা হৃদপিণ্ডের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে। এ কারণে হঠাৎ করে শ্বাস-প্রশ্বাসের হার বেড়ে গেলে এক গ্লাস ডাবের পানি খেয়ে নিতে পারেন।

৫. ডাবের পানির মধ্যে এমন কিছু উপাদান আছে যা ব্যকটেরিয়া ওভ ভাইরাস মারতে বেশ কার্যকরী। এ কারণে খাবারসহ অন্যান্য মাধ্যমে প্রত্যেক দিন যেসব ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস আমাদের পেটে প্রবেশ করে সেগুলো মারার জন্য এক গ্লাস ডাবের পানি খাওয়া যেতেই পারে।

৬. ত্বকের জন্য খুবই উপকারী ডাবের পানি। বলা যায়, ত্বকের জন্য বটিকা হিসেবে কাজ করে ডাবের পানি। তাই ত্বক সচেতন মানুষরা নিয়মিত ডাবের পানি পানের মাধ্যমে নিজের ত্বক নানান সমস্যা থেকে বাঁচাতে পারেন।

৭. ডাবের পানির অন্য আরেকটি গুণ হলো চুলের বৃদ্ধি ও খুশকি দূর করা। ডাবের পানি চুলের
পূষ্টি যোগানোর পাশাপাশি খুশকি দূর করতেও সহায়তা করে।

Related posts