দক্ষিন জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্টিত

দক্ষিন জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ৪৪ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্টিত।
মোহাম্মদ মনির
সারা আনোয়ারা
৩১-০৮-২০১৯

আজ ৩১ আগস্ট ষোলশহর এলজিইডি অডিটোরিয়ামে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।দক্ষিন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুসলেম উদ্দিনের সভাপতিত্বে সাধারন সম্পাদক মফিজের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, ভূমি মন্ত্রী আলহাজ্ব সাইফুজ্জামার জাবেদ এমপি।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, জাহিদুল ইসলাম, বিপ্লব বড়ুঁয়া,সামসুল হক, মোস্তাফিজুর রহমান, নজরুল ইসলাম,আলম।

সাইফুজ্জামান জাবেদ বলেন, আমরা হতভাগা জাতি যারা নিজেদের স্বাধীনতার মহা নায়ককে হত্যা করেছিলাম। রাষ্ট্রীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যারা স্বাধীন বাংলাদেশকে মেনে নিতে পারেনি তারাই ১৫ আগস্ট এর ঘটনা ঘটিয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুতে সব ফুরিয়ে যায়নি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর অবদানকে ফুটিয়ে তুলবে এবং তাঁর আদর্শকে জাগ্রত রাখবে।

মুসলেম উদ্দিন বলেন, একটি কুচক্রী মহল বিশেষ করে যারা স্বাধীন বাংলাদেশকে মেনে নিতে পারেনি তারাই ১৫ আগস্ট এর হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছিল।
এরপরেও হত্যাকারীরা বঙ্গবন্ধুর অবদানকে
মুছে দিতে পারেনি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের
প্রতিটি কর্মীর মধ্যেই জাগ্রত রয়েছে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের চেতনা। বাংলাদেশের
ইতিহাস, ছাত্রলীগের ইতিহাস। বাংলাদেশের সকল আন্দোলনেই ছিল ছাত্রলীগের অবদান।
ভবিষ্যতেও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দেশের পক্ষে সকল কাজে নিজেদের নিয়োজিত
রেখে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশর স্বপ্নকে পরিপূর্ণ করবে।

জাহিদুল ইসলাম বলেন, আমাদের অত্যন্ত দু:খের
বিষয় হচ্ছে যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও তার
পরিবারকে হত্যা করেছে আজো তাদের বিচার
হয়নি, তাই আমি দাবি করছি খুব শীঘ্রই হত্যাকারীদের আটক করে বিচারের আওতায় আনা হোক এবং এদের শাস্তি দেওয়া হোক।

Related posts