দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে কর্ণফুলী নদীর তলদেশের টানেল সড়ক

মোহাম্মদ রাসেল

সারা আনোয়ারা
২২-০৯-‘১৯ ইং রবিবার

ওয়ান সিটি টু টাউন করার লক্ষ্যে খুব দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে কর্ণফুলী টানেলের কাজ। কর্ণফুলী নেভাল একাডেমি থেকে শুরু করে আনোয়ারার প্রান্ত পর্যন্ত ৩.৪ কিলোমিটার দীর্ঘ নিয়ে চলমান এই কাজ। নদীর তলদেশে এটাই বাংলাদেশের প্রথম টানেল সড়ক। নদীর তলদেশে টানেলের কার্যক্রম সঠিক ভাবে পরিচালনার জন্য চীন থেকে আনা হয়েছে উন্নত মানের প্রযুক্তি এবং দক্ষ কর্মী। ২০২২ সালের মধ্যেই গাড়ি চলাচল করবে এই টানেল দিয়ে। এটি কর্ণফুলী নেভাল একাডেমি দিয়ে নদীর তলদেশে গাড়ি প্রবেশ করে তা বের হবে চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টলাইজার লিমিটেডের এর প্রান্ত দিয়ে। যার গভীরতা ১৮-৩১ কিলোমিটার নদীর তলদেশে। চীন থেকে আনা উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে নদীর তলদেশে খনন করে বসানো হচ্ছে দুটি টিউব যার মধ্য দিয়েই পরিবহন চলাচল করবে।

কর্ণফুলী নদীর তলদেশে ১০ হাজার ৩৯১ কোটি ১০ লাখ ৮৪ হাজার টাকা ৩ দশমিক ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ টানেল নির্মাণের এই কাজ গত ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে টানেল বোরিং কাজের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়।পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২০ সালের জুনের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও মেয়াদ আড়াই বছর বাড়িয়ে ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে।

২০২২ সাল নাগাদ সকল কার্যক্রম ঠিক থাকলে নদীর তলদেশের টানেল দিয়ে পরিবহন চলাচল করবে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প পরিচালক। উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় দ্রুত এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

Related posts