মইজ্জ্যারটেকে যুবকের লা*শ উদ্ধার,স্বজনদের দাবি পরিকল্পিত হ*ত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক
সারা আনোয়ারা

কর্ণফুলী উপজেলার মইজ্জারটেকে মো. কায়েছ (৩৩) নামে এক যুবকের লা*শ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ছু*রি*কাঘাতে লাশের না*ড়ি*ভুড়ি অনেকটা বের হওয়া অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

নিহত স্বজনদের দাবি, পরিকল্পিতভাবে তাঁকে কেউ হ*ত্যা করেছে।

শনিবার (২১ জানুয়ারি) সকালে উপজেলার মইজ্জ্যারটেক আবাসিক এলাকার নির্জন জায়গা থেকে পুলিশ লা*শ উদ্ধার করেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কর্ণফুলী থানার ওসি মো. দুলাল মাহমুদ।

তিনি জানান, নিহত মো. কায়েছ পটিয়া উপজেলার জিরি ইউনিয়নের কৈয়গ্রাম এলাকার দৌলত খাঁ মুন্দার বাড়ির আবু তাহেরের ছেলে।

কায়েছ ফিশারী ঘাটে জাহাজে শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। বর্তমানে সে চট্টগ্রাম নগরীতে গাড়ির হেলপার হিসেবে কাজ করেন।

পুলিশ, নিহত যুবকের পরিবার ও এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সকালে মইজ্জ্যারটেক আবাসিক এলাকায় রক্তাক্ত অবস্থায় একটি লা*শ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কায়েছের লা*শটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠান।

নিহত যুবকের স্ত্রী শাহনাজ বেগম বলেন, শুক্রবার দুপুরে কাজের উদ্দেশ্য ঘর থেকে বের হয়েছিলেন তার স্বামী। এরপর রাতে মুঠোফোনে বাড়ি আসার কথা জানিয়েছিলেন স্ত্রীকে। সারারাত বাড়ি না ফেরায় ঘরের দরজা খোলা রেখেছিল স্ত্রী শাহনাজ। বার বার স্বামীর মোবাইলে কল দিয়ে না পেয়ে দুঃচিন্তায় পড়েন। সকালে খবর আসে তার লা*শ পাওয়া গেছে।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. দুলাল মাহমুদ বলেন, র*ক্তা*ক্ত অবস্থায় একজনের লা*শ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ছু*রিকা*ঘাতে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর সঠিক কারণ জানা যাবে। জড়িত ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

Related posts